Logo

৭৯ বছর সাজাপ্রাপ্ত ইয়াবা সম্রাটের বিদেশ যাওয়ার প্রস্তুতি

৭৯ বছর সাজাপ্রাপ্ত ইয়াবা সম্রাটের বিদেশ যাওয়ার প্রস্তুতি

ইয়াবা সম্রাট আমিন হুদার বিদেশ যাওয়ার প্রক্রিয়া এখন অনেকটাই চূড়ান্ত হয়েছে। কারাবন্দি এ মাদক গডফাদার ‘উন্নত চিকিৎসার’ জন্য বিদেশে যাওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছেন। সবকিছু ঠিক থাকলে তার বিদেশ যাওয়ার দিন খুব বেশি দূরে নয়।

দেশের মাদক গডফাদারদের ওপর নজরদারি চালানো একটি গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিবেদনে আমিন হুদার বিষয়ে এমন শঙ্কা প্রকাশ করা হয়। চলতি সপ্তাহে এ সংক্রান্ত গোয়েন্দা প্রতিবেদনটি সরকারের উচ্চপর্যায়ে জমা পড়ে। প্রতিবেদনে বলা হয়, ৭৯ বছরের সাজাপ্রাপ্ত ইয়াবা সম্রাট আমিন হুদা মাত্র এক সপ্তাহ আগে চিকিৎসার কথা বলে কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদলয়ে ভর্তি হন। এরপর উন্নত চিকিৎসার জন্য তার বিদেশ যাওয়ার বিষয়টি সামনে আসে।

বিশ্বস্ত সূত্রের বরাত দিয়ে প্রতিবেদনে বলা হয়, আইনকানুন অনুসরণ করে তার চেষ্টা সফল হলে তিনি ব্যাংকক যাবেন। প্রসঙ্গত, আমিন হুদাকে ২০০৭ সালের ২৪ অক্টোবর গুলশানের একটি বাড়ি থেকে ৩০ বোতল ফেনসিডিলসহ গ্রেফতার করে এলিট ফোর্স র‌্যাব। পরে তার দেয়া তথ্যানুযায়ী গুলশানের আরেকটি বাসা থেকে ১৩৮ বোতল মদ, পাঁচ কেজি ইয়াবা বড়ি (সংখ্যায় ১ লাখ ৩০ হাজার) এবং ইয়াবা তৈরির যন্ত্র ও উপাদান উদ্ধার করা হয়।

ওই ঘটনায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের দুটি মামলায় তার মোট ৭৯ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড হয়। এরপর থেকে তিনি কারাবন্দি থাকলেও বাস্তবে বেশির ভাগ সময় চিকিৎসার নামে বিভিন্ন হাসপাতালে থাকার বিশেষ সুবিধা ভোগ করেন।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার মাহবুবুল ইসলাম বলেন, উচ্চ আদালতের আদেশ নিয়ে আমিন হুদা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যলয়ে ভর্তি আছেন। এক সপ্তাহ আগে তিনি হাসপাতালে গেছেন। এদিকে গোয়েন্দা সূত্র বলছে, আমিন হুদার বিদেশ যেতে অবশ্যই পাসপোর্ট প্রয়োজন হবে। কিন্তু তিনি দীর্ঘদিন কারাবন্দি থাকায় তার পাসপোর্ট নবায়ন হওয়ার কথা নয়। এ প্রেক্ষাপটে বিষয়টি তারা খতিয়ে দেখছেন।