Logo

হজের নিবন্ধন স্থগিত

হজের নিবন্ধন স্থগিত

করোনা পরিস্থিতিতে হজের নিবন্ধন স্থগিত রাখছে ধর্ম মন্ত্রণালয়। আপাতত সময় আর বাড়ানো হচ্ছে না। হজের ব্যাপারে সৌদি সরকারের পরবর্তী ঘোষণার পরই এ কাজে আবার হাত দেয়া হবে। এ দিকে গতকাল বৃহস্পতিবার পর্যন্ত চলতি বছরের এক লাখ ৩৭ হাজার ১৯৮ জনের কোটার মধ্যে ৬৬ হাজারের মতো হজযাত্রীর নিবন্ধন হয়েছে। গত ১ মার্চ থেকে শুরু হয়ে গত দুই মাসের মধ্যে চার দফায় বৃদ্ধি করা সময়ের গতকাল ছিল শেষ দিন।
ধর্ম সচিব মো: নুরুল ইসলাম সংবাদমাধ্যমকে বলেন, এই পরিস্থিতিতে নিবন্ধন এ পর্যন্ত থাকছে; সময় বাড়ানো হচ্ছে না। হজ নিয়ে তো এমনিতেই অনিশ্চয়তা আছে। এখন সারা পৃথিবীতে কী অবস্থা সবাই তো দেখতে পারছেন। সৌদি সরকার হজের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত কী নেয় সেটা দেখে তারপর যা করার করা হবে।
তিনি বলেন, হজ চালু করা হলেও কত সংখ্যক লোক এ বছর যেতে পারবেন সেটাও একটা বিষয়। তবে এতটুকু নিশ্চিয়তা রয়েছে, যারা টাকা জমা দিয়েছেন তারা প্রতারিত হবেন না।
হজ এজেন্সিগুলোর সংগঠনÑ হাব নেতাদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, তারা আরো আগেই নিবন্ধন স্থগিত চেয়েছিলেন। পাসপোর্ট অফিসে যেতে না পারা এবং ব্যাংকের সব শাখা খোলা না থাকার কারণে লকডাউনের মধ্যে তাদের পক্ষেও নিবন্ধন করা সম্ভব হচ্ছে না। অনিশ্চয়তার কারণে হজযাত্রীদের অনাগ্রহের বিষয়ও রয়েছে এর সাথে।

 এ বছর বাংলাদেশের জন্য হজের কোটা এক লাখ ৩৭ হাজার ১৯৮ জন। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনার ১৭ হাজার ১৯৮ জন এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনার এক লাখ ২০ হাজার। এই হিসাবে গতকাল পর্যন্ত মোট হজযাত্রীর ৪৭ শতাংশের নিবন্ধন হয়েছে।
চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ৩০ জুলাই (৯ জিলহজ) এ বছরের হজ পালিত হওয়ার কথা। তবে বিশ্বব্যাপী করোনা পরিস্থিতির কারণে এই বছরের হজ স্থগিত হওয়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে।