Logo

সোমালিয়ায় মার্কিন বিমান হামলায় অর্ধশতাধিক নিহত

সোমালিয়ায় মার্কিন বিমান হামলায় অর্ধশতাধিক নিহত

দক্ষিণ আফ্রিকার যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ সোমালিয়ায় মার্কিন সেনাবাহিনীর বিমান হামলায় অর্ধশতাধিক মানুষ নিহত হয়েছেন।

মার্কিন সেনাবাহিনীর দাবি, নিহতরা সবাই জঙ্গিগোষ্ঠী আলশাবাবের সদস্য। খবর গার্ডিয়ানের।

গার্ডিয়ান জানায়, সোমালিয়ার সরকারি বাহিনীর ওপর হামলার জবাবে মার্কিন সেনাবাহিনী এ হামলা চালায়। ওই হামলায় আল শাবাবের ৫২ চরমপন্থী নিহত হয়েছে।

আলশাবাবের নিয়ন্ত্রণে দেশটির রাজধানী মোগাদিসুসহ দক্ষিণ ও মধ্য সোমালিয়ার বিশাল একটি অংশ রয়েছে। তারা দাবি করছে, মঙ্গলবার কেনিয়ার একটি বিলাসবহুল হোটেলে ধ্বংসাত্মক আক্রমণ করেছে।

এদিকে আফ্রিকায় মার্কিন সেনারা এক বিবৃতিতে বলেছে জিলিব শহরের কাছে জুবা অঞ্চলে বিমান হামলা চালানো হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র বলছে, আল-কায়েদার সঙ্গে জড়িত চরমপন্থীদের একটি শক্তিশালী বাহিনী দিয়ে সোমালিয়া বাহিনী হামলা চালায়।

বিবৃতিতে কতজন সোমালিয়া বাহিনী নিহত বা আহত হয়েছে তা জানানো হয়নি। এছাড়া প্রতিবেদনে কত মার্কিন সেনা নিহত বা আহত হয়েছে বলা হয়নি।

কাতারভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম আলজাজিরার প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, আলশাবাবের হামলায় ১৫ সোমালীয় সেনা সদস্য নিহত হয়েছেন।

অন্যদিকে সংবাদ সংস্থা শাহাদার কাছে আলশাবাব জানায়, তাদের অতর্কিত হামলায় সোমালীয় সেনাবাহিনীর দুটি ঘাঁটিতে অন্তত সোমালিয়ার ৪১ সেনা নিহত হয়েছে। কিসমাও পোর্ট শহর এলাকার কাছে বার সানজুনি এলাকায় এ হামলা সংগঠিত হয়। এনিয়ে তাৎক্ষণিক সোমালিয়া সরকার কোনো মন্তব্য করেনি।

পার্শ্ববর্তী দেশ ইথিওপিয়া রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে জানায়, আল শাবাবের ৬০ যোদ্ধা নিহত হয়েছে। এছাড়া বিস্ফোরণ বোঝাই চারটি যান ধ্বংস হয়েছে।

বহুজাতিক আফ্রিকান ইউনিয়ন শান্তিরক্ষা মিশনে ইথিওপিয়া তাদের সেনাবাহিনী দিয়েছে। যারা ইথিওপীয় সেনা কমান্ডের অধীনে স্বাধীনভাবে কাজ করছে।

সোমালিয়ার ক্ষমতাসীন সরকার আন্তর্জাতিক সমর্থনপুষ্ট। কিন্তু এই সরকারকে হটাতে সশস্ত্র সংঘাতে লিপ্ত আল-শাবাব। দীর্ঘ বছর ধরে চলে আসা এই সংঘাত থামাতে সেখানে নিয়োজিত রয়েছে ইথিওপিয়াসহ আফ্রিকান অঞ্চলের অনেক মিত্র রাষ্ট্রের বাহিনী।

২০১৭ সালে সেখানে সামরিক বাহিনী পাঠায় যুক্তরাষ্ট্রও। এরপর শাবাব দমনে বিভিন্ন সময়ে অভিযান চালিয়েছে মার্কিন বাহিনী।