Logo

‘সেটি ইয়াবা সেবনের আসল নয়, ডামি ছবি’

‘সেটি ইয়াবা সেবনের আসল নয়, ডামি ছবি’

বরিশালের গোয়েন্দা কার্যালয়ে হাতকড়া পরা অবস্থায় চরমোনাই পীরের চাচাত ভাইয়ের ইয়াবা সেবনের ছবি ছড়িয়ে পড়ার পর ব্যাপক আলোচনা তৈরি হয়েছে। যদিও একজন গোয়েন্দা কর্মকর্তা দাবি করেছেন, সেটি ইয়াবা সেবনের আসল ছবি নয়। তিনি কীভাবে সেবন করতেন, সেটিই দেখানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাতে পুলিশের এক কর্মকর্তার ফেসবুক ওয়ালে পোস্ট করা ছবিটি মুহূর্তেই ভাইরাল হয়ে পড়ে। যা নিয়ে বরিশাল জুড়ে তোলপাড় চলছে।

ডিবি কার্যালয়ে হাতকড়া পরা অবস্থায় ইয়াবা সেবনের বিষয়টি নিয়েও প্রশ্নের মুখে পড়তে হয়েছে নগর পুলিশকেও। যদিও ওটি ইয়াবা সেবন নয়, বরং তিনি কীভাবে ইয়াবা সেবন করেন তারই একটি ডামি ছবি পোস্ট করা হয়েছে বলে দাবি করেছেন মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের সহকারী কমিশনার নাসির উদ্দিন মল্লিক।

এই কর্মকর্তা জানান, বৃহস্পতিবার রাত নয়টার দিকে নগরীর বেলতলা খেয়াঘাট এলাকা থেকে আটটি পিস ইয়াবা বড়িসহ চরমোনাই পীর সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করিমের চাচাত ভাই সৈয়দ মাউদুত করিমকে আটক করেন ডিবির এসআই ফিরোজ আলমের নেতৃত্বাধীন দল।

‘মাউদুত করিমকে গ্রেপ্তারের পরে হ্যান্ডকাপ পরিয়ে ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে আসা হয়। এসময় ডিবি কার্যালয়ের কর্মীরা তাকে দেখে বিস্মিত হন। তার ইয়াবা সেবনের দৃশ্য দেখতে কৌতুহল সৃষ্টি হয় সংশ্লিষ্টদের মাঝে। আর তাই ডিবি কার্যালয়ে সকলের অনুরোধে মাউদুত করিম কীভাবে ইয়াবা সেবন করেন তা দেখান। এসময় তার হাতে হ্যান্ডকাপ পড়া ছিল।’

ডিবি কর্মকর্তা নাসির উদ্দিন মল্লিক বলেন, ‘ঘটনাচক্রে ওই দৃশ্য মোবাইল ক্যামেরায় ধারণ করেন ডিবির উপ-পরিদর্শক (এসআই) দেলোয়ার হোসেন। এমনকি পরবর্তীতে তা ফেসবুকে পোস্ট করেন। তবে তা মুহূর্তের মধ্যেই আবার সরিয়ে ফেলেছে।’

উপপরিদর্শক দেলোয়ার হোসেন বলেন, ‘কৌতুহল বসত ছবিটি ফেসবুকে দিয়েছিলাম। তবে ছবিটি পোস্ট করায় কিছুক্ষণের মধ্যেই আবার তা সরিয়ে ফেলেছি। ইয়াবা সেবনের ওই দৃশ্যটি বাস্তব নয়। তিনি কীভাবে ইয়াবা সেবন করেন তার ডামিমাত্র।’

এই পুলিশ কর্মকর্তার তথ্য অনুযায়ী, মাউদুত নিজেও মাদক চক্রের সঙ্গে জড়িত। এর আগেও একবার তাকে হেরোইনসহ আটক করা হয়।

বৃহস্পতিবার রাতে ইয়াবাসহ আটকের ঘটনায় ডিবির এসআই ফিরোজ আলম বাদী হয়ে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করেছেন। ওই মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে শুক্রবার আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।