Logo

সীমান্ত দেয়াল নির্মাণে পর্যাপ্ত অর্থ চাইলেন ট্রাম্প

সীমান্ত দেয়াল নির্মাণে পর্যাপ্ত অর্থ চাইলেন ট্রাম্প

মেক্সিকো সীমান্তে দীর্ঘ প্রতিশ্রুত দেয়াল নির্মাণের জন্য পর্যাপ্ত অর্থ বরাদ্দ চেয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

ওভাল অফিস থেকে দেয়া জাতির উদ্দেশে প্রথমবারের মতো ভাষণে ট্রাম্প বলেন, সীমান্তে বাড়তে থাকা মানবিক ও নিরাপত্তা সংকট নিরসনে সেখানে দেয়াল নির্মাণ করতে পর্যাপ্ত অর্থ দরকার।

বিবিসি জানিয়েছে, মঙ্গলবার টেলিভিশনে দেয়া ৮ মিনিটের এ ভাষণে তিনি কেন্দ্রীয় সরকারের বিভিন্ন বিভাগ ও সংস্থার অচলাবস্থার জন্য ডেমোক্র্যাটদের দায়ী করেন। যুক্তরাষ্ট্রের সব বড় বড় টেলিভিশন নেটওয়ার্কে তার ভাষণ সম্প্রচারিত হয়।

রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট বলেন, ডেমোক্র্যাটদের কারণেই কেন্দ্রীয় সরকারের অচলাবস্থা এখনও চলছে। নতুন করে উত্তর আমেরিকান রাষ্ট্রগুলোর মধ্যে মুক্তবাণিজ্য চুক্তি হলে সেখান থেকে দেয়াল নির্মাণের অর্থ উঠে আসবে। যদিও চুক্তিটি এখনও অনুমোদিত হয়নি।

অর্থনীতিবিদরা ট্রাম্পের এ ধারণাকে খারিজ করে দিয়েছেন। ভাষণে যুক্তরাষ্ট্রে বিক্রি হওয়া মাদক হেরোইনের ৯০ শতাংশই মেক্সিকো থেকে আসে বলেও জানান তিনি।

ডেমোক্র্যাটরা এখন সীমান্তে দেয়াল নির্মাণের বিরোধিতা করলেও এক যুগ আগে তারাই এর পক্ষে ছিল বলেও মনে করিয়ে দেন ট্রাম্প।

২০০৬ সালে সীমান্তের ৭০০ মাইলজুড়ে নিরাপত্তাবেষ্টনী নির্মাণের একটি প্রস্তাবে চাক শুমার, বারাক ওবামা, হিলারি ক্লিনটন ও জো বাইডেনের সায় ছিল।

ট্রাম্প মেক্সিকো সীমান্তে ইস্পাতের দেয়াল নির্মাণে কংগ্রেসের কাছে ৫৭০ কোটি ডলার চেয়েছেন। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচারে যে কোনো মূল্যে এ দেয়াল নির্মাণের প্রতিশ্রুতি ছিল তার।

ডেমোক্র্যাটরা বলছেন, তারা সাধারণ মানুষের করের টাকায় দেয়াল নির্মাণের পক্ষপাতী নন।

দুপক্ষের এই অনড় অবস্থানের কারণে দেশটির কেন্দ্রীয় সরকারের এক-চতুর্থাংশ বিভাগ ও সংস্থায় দুই সপ্তাহের বেশি সময় ধরে অচলাবস্থা চলছে।

ট্রাম্পের বক্তব্যের পর শীর্ষ ডেমোক্র্যাট নেতারা দেয়াল নির্মাণের অর্থ পেতে ট্রাম্প মার্কিন জনগণকে জিম্মি করছেন বলে অভিযোগ করেছেন।

১৮ দিন ধরে চলা যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ এ অচলাবস্থার কারণে লাখ লাখ সরকারি কর্মী বেকার অবস্থায় বসে আছেন।

কাগজপত্রহীন অভিবাসীরা ঠাণ্ডা মাথায় মার্কিন নাগরিকদের হত্যা করছে বলে উল্লেখ করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। তিনি প্রশ্ন রাখেন- কংগ্রেস তার প্রস্তাবে সায় দেয়ার আগে মার্কিন নাগরিকদের কী পরিমাণ রক্ত ঝরবে?