Logo

সংসদীয় গণতন্ত্রে বিরোধী দল ম্যান্ডেটরি নয়: সংসদে জাপা এমপি

সংসদীয় গণতন্ত্রে বিরোধী দল ম্যান্ডেটরি নয়: সংসদে জাপা এমপি

সংসদীয় গণতন্ত্রে বিরোধী দল ‘ম্যান্ডেটরি’ নয় বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য রুস্তম আলী ফরাজী। সোমবার জাতীয় সংসদ অধিবেশনে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর ধন্যবাদ প্রস্তাবের আলোচনায় অংশ নিয়ে এ কথা বলেন তিনি। রুস্তম আলী ফরাজী বলেন, সংসদীয় গণতন্ত্রে বিরোধী থাকতে হবে, ইজ ইট ম্যান্ডেটরি? ইট ইজ নট ম্যান্ডেটরি। ভারতের উদাহরণ তুলে ধরে তিনি বলেন, আমি আপনাদের বুঝাই- ইন্ডিয়াতে প্রথম লোকসভা ইলেকশনে কোনো বিরোধী দল ছিলো না। একটা বিরোধী গ্রুপ হইছিলো, কয়েকজন কমিউনিস্ট পার্টির হইছিলো ওয়েস্ট বেঙ্গলে আর ত্রিপুরায়। ফরাজী বলেন, সেকেন্ড পার্লামেন্টে- কোনো গ্রুপও ছিলো না, মাত্র ৫ জন। তৃতীয় পার্লামেন্টেও কোনো গ্রুপ ছিলো না। মানে বিরোধী দল তো দূরের কথা গ্রুপও না। চতুর্থ পার্লামেন্টে কংগ্রেস ভেঙে আর স্বতন্ত্র কয়েকজন মিলে হয় প্রথম বিরোধী দল। মানে গর্ভমেন্ট অপজিশন। আর এবার তো গর্ভমেন্ট অপজিশনও করতে পারেনি। জাতীয় পার্টির এ সংসদ সদস্য আরো বলেন, সুতরাং এটা যারা বলে যে, অপজিশন মাস্ট, ইট ইজ নট মাস্ট। সমালোচকদের জ্ঞানপাপী মন্তব্য করে ফরাজী বলেন, সেই জন্য আমি বলি এই সব আজেবাজে কথা না বলে ভালোভাবে চিন্তা ভাবনা করেন। জ্ঞানী-গুণী দাবি করেন। ইতিহাস পড়তে হয়, জানতে হয়। সংবিধানও জানতে হয়। এগুলো পড়তে হয়। তিনি বলেন, যা মনে আসে তাই বলবেন- ভালো না লাগলে দিনকে রাত বলবেন, রাতকে দিন বলবেন, এটা ঠিক না। এটা যারা করে তারা জ্ঞানপাপী। এসব জ্ঞানপাপীদের সাথে আমি বিতর্ক করতে চাই। কিন্তু বির্তকে তো তারা পারবে না। ফরাজী বলেন, সংসদীয় গণতন্ত্রে জনগণ উন্নয়নের পক্ষে ভোট দেয়। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সারা বিশ্বকে তিনি জয় করেছেন। আবার প্রার্থী তিনি দিয়েছেন ১০ বার যাচাই-বাছাই করে। এর আগে এত যাচাই-বাছাই করে প্রার্থী দিয়েছেন কিনা জানি না। এবার আমি শুনেছি তিনি এমন কোনো গোয়েন্দা সংস্থা নাই যাদের ব্যবহার করেন না। বেছে বেছে তারপর তিনি প্রার্থী দিয়েছেন। নির্বাচনে যদি সবাই ভোট দেয় তিনি কী করবেন? তিনি তো বলতে পারেন না যে, ঠেইলা আমাকে ফেলাইতে হবে, যোগ করেন ফরাজী। তিনি বলেন, আজকে ভারত নিয়ে কেউ কখনো প্রশ্ন করে না। যে প্রথম তিনটায় কোন বিরোধী দল ছিলো না। কোনো বিরোধী গ্রুপও হয় নাই। এখনো কিন্তু নাই। সোনিয়া গান্ধী হতে পারেন নাই। আমাদের এখানে শুধু প্রশ্ন করে। জাতীয় পার্টির এ সংসদ সদস্য বলেন, এখানে প্রশ্ন করার কী আছে? এখানে প্রশ্ন করার কিছু নাই। বরঞ্চ উন্নয়ন করতে গেলে- নেলসন মেন্ডেলা কিভাবে করেছেন। নেলসন মেন্ডেলা সরকারে আসেন নাই, ২৭ বছর জেলে ছিলেন। জেল থেকে বেরিয়ে এসে নির্বাচন দিলেন প্রেসিডেন্ট হলেন। কিভাবে রাষ্ট্র চালালেন, সবাইকে বললেন যে, আসেন। তিনি সবাইকে মিলে ঐক্যমতের সরকার গঠন করলেন, সবাইকে মন্ত্রিপরিষদে নিলেন, প্রেসিডেন্ট হলেন তিনি। কাজ করলেন, সবাইকে দেখিয়ে দিলেন, উনি নোবেল প্রাইজও পেলেন। শান্তির পদক পেলেন।