Logo

শিষ্যদের সান্ত্বনা দেয়ার ভাষা জানা নেই ইংলিশ কোচের

শিষ্যদের সান্ত্বনা দেয়ার ভাষা জানা নেই ইংলিশ কোচের

প্রত্যাশার চেয়েও ভালো খেলেছে ইংল্যান্ড। সেমিফাইনালে ক্রোয়েশিয়ার কাছে হেরে বিদায় হলেও দলের কোচ গ্যারেথ সাউথগেট তার খেলোয়াড়দের নিয়ে গর্বিত। থ্রি লায়ন্সরা এতদূর আসবে, সেটা কেউ ভাবেনি বলেই মনে করছেন তিনি। তাই বলে কি বিদায়ের হতাশা নেই? অবশ্যই আছে। সাউথগেট জানিয়েছেন, এই মূহুর্তে শিষ্যদের সান্ত্বনা দেয়ার মতো ভাষা জানা নেই তার।


২৮ বছর পর বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে উঠে ইংল্যান্ড। স্বপ্ন ছিল, শিরোপা নিয়েই ঘরে ফিরবে। ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে সেমিফাইনালের লড়াইয়ে ৫ মিনিটেই গোল করে সেই স্বপ্নকে বাস্তব করার পথে অনেকটাই এগিয়ে গিয়েছিল সাউথগেটের দল। ম্যাচের ৬৮ মিনিটে গোল শোধ করে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়ায় ক্রোয়েটরা। নির্ধারিত সময়ে ১-১ গোলে ড্র থাকার পর অতিরিক্ত সময়ের ১০৯ মিনিটে মারিও মানজুকিচের দুর্দান্ত এক গোলে তীরে এসে তরী ডুবেছে ইংল্যান্ডের।



যার স্বপ্ন ভাঙে, সে-ই কষ্টটা বুঝে। এতদূর চলে আসার পর এমন বিদায়ে তাই শিষ্যদের জন্য সান্ত্বনার ভাষা খুঁজে পাচ্ছেন না সাউথগেট। ইংলিশ কোচ বলেন, ‘এই মূহুর্তে খেলোয়াড়রা ভালো অনুভব করবে, এমন কিছু করার সাধ্য নেই আমার। বুঝতে পারছি, আমরা বড়, অনেক বড় একটা ম্যাচ হেরেছি। এটা থেকে আসলে খুব দ্রুত বেরিয়ে আসতেও চাই না। আমরা যে সুযোগটা পেয়েছিলাম, সেটি এড়িয়ে যাওয়া সম্ভব নয়। এই মূহুর্তে আমরা সবাই হারের কষ্টটা অনুভব করছি।’


তবে ইংল্যান্ডের এই দলটা যে এতদূর এসেছে, সেটির জন্য গর্বিত সাউথগেট। বাস্তবতা মেনে নিয়েই সান্ত্বনা খুঁজছেন ইংলিশ কোচ, ‘আমরা কি ভেবেছিলাম, এই অবস্থানে আসতে পারব? সত্যি করে বললে, আমার মনে হয় কেউই ভাবেনি। ১৮ মাস পেছনে ফিরে তাকান, কেউ আশা করেনি যে আমরা বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল খেলব।’