Logo

‘শিশুটির পিতৃপরিচয় সনাক্তে ডিএনএ টেস্ট চায় উজ্জল’  

‘শিশুটির পিতৃপরিচয় সনাক্তে ডিএনএ টেস্ট চায় উজ্জল’  

কখনো বিনা আহমেদ, কখনো দিপ্তী রাণী পরিচয় দিয়ে প্রতারণার মাধ্যমে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ দিপ্তী নামে এক নারীর বিরুদ্ধে। তিনি নিজে মুসলিম পরিবারের জন্ম গ্রহণ করলেও টাকার নেশায় কখনো বিনা আহমেদ, কখনো দিপ্তী রাণী পরিচয়ে তিনি অগণিত পুরুষকে ফাঁদে ফেলে বিয়ে করে কথিত স্বামী, তাদের স্বজন ও বন্ধুদের কাছ থেকে বিভিন্ন প্রলোভন দিয়ে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন।

বিনা আহমেদ ওরপে দিপ্তী রাণীর প্রতারণার ফাঁদে পড়ে ভোলার লালমোহনের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী বাবু কালিপদের একমাত্র ছেলে উজ্জল এখন দিশেহারা। জাতীয় পরিচয়পত্র অনুযায়ী তার নাম মিসেস বিনা আহমেদ পিতা আঃ বাছেদ তালুকদার, মাতা লাভলী বেগম। জন্ম তারিখ ০২-০৬-১৯৯২ ইং। আইডি নং ১৯৯২৬৮২৬৩০০০০১০। পাসপোর্ট নং বি০০৬৭৯৪০৮। খবর নিয়ে জানা গেছে, ২০০৭ সালে  বাছেদ তালুকদার এর কন্যা বিনা আক্তার লিমা এর সহিত জোবায়ের আহমেদ, পিতা মোঃ মোসলেম ভূইয়া সাং কো-অপারেটিভ জুটমিল, বটতলা, থানা পলাশ, জেলা নরসিংদী উভয়ে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। সেই ঘরে তাদের দুটি সন্তান জন্ম গ্রহণ করে।

এরই মধ্যে স্বামী জোবায়ের আহমেদ এর সাথে প্রতারণা করে তার বিরুদ্ধে টাঙ্গাইলের বিজ্ঞ নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ‘ক’ অঞ্চল আদালতে মোকদ্দমা নং ২০২/২০১৬ ইং দায়ের করে বিনা আহমেদ ওরপে দিপ্তী রাণী। এরপর ২০১৮ সালে ধর্ম পরিবর্তন করে দিপ্ত রাণী নাম ধারণ করে প্রতারণার ফাঁদে ফেলতে লালমোহনের বাবু কালিপদের ছেলে উজ্জলের সাথে প্রেমের অভিনয় শুরু করে বিনা আহমেদ ওরপে দিপ্তী রাণী। গত বছর লালমোহনে এসে দালালদের মাধ্যমে উপজেলার ধলীগৌরনগর ইউনিয়ন ও চরভূতা ইউনিয়ন থেকে ভূয়া নাগরিকত্ব সার্টিফিকেট কিনেন দিপ্তী রাণী পরিচয়ে। তখন তার গর্ভে সন্তান আছে উল্লেখ করে সন্তানের পিতৃপরিচয় দাবী করে বিনা আহমেদ ওরপে দিপ্তী রাণী। এরপর নানাভাবে উজ্জলের সাথে প্রতারণা করে দিপ্তী রাণী।

এদিকে উজ্জল বলছেন, দিপ্তীর বর্তমান সন্তানকে ডিএনএ টেস্ট করা হলে বেড়িয়ে আসবে এই সন্তান কার। তবে দিপ্তী রাণী তার সন্তানের ডিএনএ টেস্ট করতে রাজি না।