Logo

ভেঙে পড়েছে আকাশবীণার দরজা!

ভেঙে পড়েছে আকাশবীণার দরজা!

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সে যুক্ত হওয়া নতুন উড়োজাহাজ বোয়িং ৭৮৭ আকাশবীণার জরুরি দরজার একটি বিশেষ অংশ (র‌্যাফট) ভেঙে পড়েছে।

মঙ্গলবার (১১ সেপ্টেম্বর) সকালে এ ঘটনা ঘটে। এ কারণে ঢাকা থেকে সিঙ্গাপুরগামী ফ্লাইটটিতে দেড় ঘণ্টা দেরি হয়।

সূত্র জানায়, এ ঘটনায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের প্রকৌশলী মোস্তাফিজুর রহমানকে সঙ্গে সঙ্গে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মোসাদ্দেক আলী বলেন, এ ঘটনায় একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। প্রকৌশলী মোস্তাফিজুর রহমানকে সাময়িক বরখাস্তও করা হয়েছে। মূলত তার অদক্ষতার কারণেই এ ঘটনা ঘটেছে।

জানা গেছে, মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৮টায় ড্রিমলাইনার বোয়িং ৭৮৭-এর সিঙ্গাপুরের ফ্লাইট যাওয়ার প্রস্তুতি চলছিল। এসময় বোর্ডিং ব্রিজে সংযুক্ত থাকা অবস্থায় বিএফসিসি থেকে যাত্রীদের জন্য খাবার তোলা হচ্ছিল। এসময় প্রকৌশল বিভাগের স্টাফ মোস্তাফিজুর রহমান দরজা অন করতে ভুল বাটনে চাপ দেন। আর তাতেই জরুরি দরজার র‌্যাফট নাম অংশটি খুলে ভেঙে পড়ে।

পরে খুলে যাওয়া অংশটি প্রকৌশল বিভাগে নিয়ে যাওয়া হয় এবং ফ্লাইট চালু রাখা হয়। যদিও এ কারণে দেড় ঘণ্টা দেরি হয় ফ্লাইটে।

ক্যাপ্টেন মোসাদ্দেক আলী জানান, আকাশবীণার যে অংশটি খুলে পড়েছে, সেটি লন্ডন থেকে আনা হবে। আগামী তিন দিনের মধ্যে সেটি লন্ডন থেকে এনে আকাশবীণায় সংযুক্ত করা হবে।

এর আগে, গত ৫ সেপ্টেম্বর উদ্বোধন করা হয় বোয়িং-৭৮৭ ড্রিমলাইনার, যার নাম দেওয়া হয় আকাশবীণা। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স বলছে, এটিই সর্বাধুনিক প্রযুক্তি সংবলিত উড়োজাহাজ। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আনুষ্ঠানিকভাবে এর উদ্বোধন করেন। ওই দিনই সন্ধ্যায় ছিল আকাশবীণার প্রথম ফ্লাইট, গন্তব্য ছিল মালয়েশিয়া।

বহুল কাংক্ষিত বোয়িং ড্রিমলাইনার ৭৮৭ ‘আকাশবীণা’ দেশে আনা হয় গত ১৯ আগস্ট। ওই দিন বিকেল ৫টা ১৯ মিনিটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে উড়োজাহাজটি। যুক্তরাষ্ট্রের সিয়াটলের বোয়িং কার্যালয় থেকে রওয়ানা হয়ে এদিন বিকেলে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ল্যান্ড করে ড্রিমলাইনারটি। এ নিয়ে বিমানের বহরে উড়োজাহজের সংখ্যা দাঁড়ালো ১৫টিতে।

টানা ১৬ ঘণ্টা উড়তে সক্ষম এই ড্রিমলাইনার চালাতে অন্যান্য বিমানের তুলনায় ২০ শতাংশ কম জ্বালানি লাগবে। এটি ঘণ্টায় ৬৫০ মাইল বেগে উড়তে সক্ষম। কম্পোজিট ম্যাটেরিয়াল দিয়ে তৈরি হওয়ায় এই বিমান ওজনে হালকা। ভূমি থেকে বিমানটির উচ্চতা ৫৬ ফুট। দু’টি পাখার আয়তন ১৯৭ ফুট।