Logo

বিএনপিকে জামায়াত ছাড়ার ‘শর্ত’ ড. কামালের

বিএনপিকে জামায়াত ছাড়ার ‘শর্ত’ ড. কামালের

স্বাধীনতাবিরোধী দল জামায়াতে ইসলামীর সঙ্গে রাজনীতি করতে গণফোরামের জন্ম হয়নি মন্তব্য করে বিএনপিকে কার্যত জামায়াত ছাড়ার শর্ত বেঁধে দিলেন তাদের শরিক দলটির সভাপতি ড. কামাল হোসেন। বলেছেন, জামায়াত নেতারা বিএনপির প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করবে জানলে তিনি ঐক্যফ্রন্টেই যেতেন না।

শনিবার রাজধানীর আরামবাগে গণফোরামের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে ঐক্যফ্রন্টের প্রধান নেতা বলেন, ‘জামায়াতের সঙ্গে রাজনীতি করবে না ঐক্যফ্রন্ট। জামায়াতকে বাদ দিয়ে বিএনপির সাথে ঐক্যফ্রন্ট আরো শক্তিশালী হয়ে চলমান থাকবে।’

বিএনপিকে জামায়াত ছাড়তে চাপ দেওয়া হবে কি না-জানতে চাইলে ড. কামাল বলেন, ‘আমি তো মনে করি, জামায়াতকে ছেড়ে আসতে বিএনপিকে চাপ দেওয়া হতে পারে।’

বিএনপি যদি জামায়াত ছাড়তে রাজি না হয় তাহলে গণফোরামের অবস্থান কী হবে- এমন প্রশ্নে দলের সভাপতি বলেন, ‘আমি পরিষ্কার ভাষায় বলতে চাই, জামায়াতকে নিয়ে কোনও রাজনীতি করব না আমরা। অবিলম্বে জামায়াতে বিষয়ে বিএনপির কাছ থেকে আমরা সুরাহা চাই।’

গত ১৩ অক্টোবর সরকারবিরোধী জাতীয় ঐক্য গড়ার চেষ্টার অংশ হিসেবে বিএনপি গঠন করে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। নিজেরা সবচেয়ে বড় দল হলেও গণফোরাম নেতা কামাল হোসেনই এই জোটের প্রধান নেতা হিসেবে আবির্ভুত হয়েছেন।

কামাল হোসেন এই জোট গড়ার আগেই সংবাদ সম্মেলন করে জানান, জামায়াত জোটবদ্ধ থাকলে বিএনপির সঙ্গে তাদের কোনো ঐক্য থাকবে না। কিন্তু এই ঘোষণা ভুলে ঐক্য গড়ার পর কামাল হোসেন এবং তার অনুসারীরা বলতে থাকেন, জামায়াত বিএনপির সঙ্গে ২০ দলে জোটবদ্ধ। আর তারা জোট করেছেন বিএনপির সঙ্গে। কাজেই তারা জামায়াতের সঙ্গে জোট করেননি।

তবে ৩০ ডিসেম্বরের ভোটে বিএনপি জামায়াতের ২১ জন প্রার্থীকে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে বিব্রতকর অবস্থায় ফেলে কামাল হোসেন এবং ঐক্যফ্রন্টে তাদের অন্য শরিকদের। কারণ, নিবন্ধন হারানো পাকিস্তানের দোসর দলটির নেতারাও ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী হিসেবে ভোট চাইতে থাকেন। আর কামাল হোসেনের নিজের প্রার্থীরাও একই প্রতীকে ভোট করে। কামাল হোসেন ধানের শীষে ভোট দেওয়ার যে আহ্বান জানায়, জামায়াতও তার বাইরে ছিল না।

তবে ভোটের আগে ভারতীয় একটি গণমাধ্যমে দেওয়া সাক্ষাৎকারে গণফোরাম নেতা বলেন, জামায়াত ধানের শীষ পাবে জানলে তিনি ঐক্যফ্রন্টে যেতেন না।  আজকের সংবাদ সম্মেলনেও একই কথা বলেন তিনি।

‘আমি যখন ঐক্যে সম্মতি দিয়েছি তখন জামায়াতের কথা আমার জানা ছিল না।...আমি অলরেডি পাবলিকলি বলেছি, যে ভাই এটা তো আমার জানাই ছিল না। জামায়াতের ২৫ জনকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। আমি যখন সম্মতি দিয়েছি তখন এটা আমাকে জনানো হয়নি। অন্তত আমার মতে সেটা (জামায়াতের সঙ্গে নির্বাচনে যাওয়া) একটা ভুল।’

এর আগে লিখিত বক্তব্যে গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টু বলেন, ‘তাড়াতাড়ি জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠন করতে গিয়ে অনিচ্ছাকৃত যেসব ভুল-ক্রটি হয়েছে তা সংশোধন করে ভবিষ্যতের জন্য সুদৃঢ় জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলা হবে।’

অনিচ্ছাকৃত ভুলত্রুটি বলতে কী বোঝানো হয়েছে এবং সেটা দ্বারা জামায়াতের সঙ্গে ঐক্যকেও বুঝানো হচ্ছে কিনা জানতে চাইলে ড. কামাল বলেন, ‘একটা ভালো উদাহরণ আপনি দিয়েছেন। এটাকেও আমি মনে করবো, ইয়েস।’ মন্টু বলেন, 'জামায়াতকে নিয়ে আমাদের রাজনীতি করার কোন ইচ্ছা নাই। আমরা আগেও করিনি, এখনো করছি না এবং ভবিষ্যতেও করবো না।'