Logo

দরকষাকষির ঐতিহ্য আ’লীগের, বিএনপির নয়: রিজভী

দরকষাকষির ঐতিহ্য আ’লীগের, বিএনপির নয়: রিজভী

অগণতান্ত্রিক সরকারের সঙ্গে দরকষাকষি ও দেন-দরবারের ঐতিহ্য আওয়ামী লীগের, বিএনপির নয় বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

মঙ্গলবার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

রিজভী বলেন, আওয়ামী লীগের এক নেতা বলেছেন- খালেদা জিয়ার মুক্তি নিয়ে দরকষাকষি বাজে দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। আরেক নেতা বলেছেন- ৩০ এপ্রিলের মধ্যে জানা যাবে বিএনপি থাকবে কী থাকবে না।

‘আওয়ামী নেতাদের উদ্দেশে আমি বলতে চাই- খালেদা জিয়া আপসহীন নেত্রী হিসেবেই জনগণের কাছে প্রতিষ্ঠিত। সুতরাং তিনি কখনই কোনো অন্যায়ের কাছে মাথানত করেননি, কোনো স্বৈরাচারের কাছেই আত্মসমর্পণ করেননি।’

বিএনপির এ নেতা বলেন, দরকষাকষির দৃষ্টান্ত কার আছে, সেটি আওয়ামী নেতারা নিজেরাই জানেন, আর না জানলে আপনাদের নেত্রীকে জিজ্ঞাসা করুন।

আওয়ামী লীগ নেতাদের উদ্দেশে রিজভী আরও বলেন, এরশাদের নির্বাচনে যে যাবে, সে জাতীয় বেইমান হবে বলে আপনাদের নেত্রী দরকষাকষি করে সেই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছিলেন। জাতীয় বেইমানের মুকুট তিনি নিজেই নিজের মাথায় পরে ক্ষমতার হালুয়া-মোরব্বার ভাগ পেয়েছিলেন।

‘কীভাবে একটি অবৈধ ও অসাংবিধানিক ফখরুদ্দিন-মঈনুদ্দিন সরকারের সঙ্গে দরকষাকষি করে ক্ষমতায় এসেছিলেন, সেটিও নিশ্চয়ই আপনারা ভুলে যাননি। অগণতান্ত্রিক সরকারের সঙ্গে দরকষাকষি ও দেন-দরবারের ঐতিহ্য আওয়ামী লীগের, বিএনপির নয়; যোগ করেন তিনি।

বিএনপির এ নেতা বলেন, রাষ্ট্রশক্তিকে ব্যবহার করে খালেদা জিয়াকে যেভাবে বন্দি করে রাখা হয়েছে, সেটিই ইতিহাসে কলঙ্কজনক অধ্যায় হিসেবে দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে।

তিনি বলেন, দেশের মানুষ জানে এবং বিশ্বাস করে খালেদা জিয়া নির্দোষ। দেশ থেকে আইনের শাসনকে সমাহিত করে পুলিশি শাসন কায়েম করা হয়েছে।

তবে অবৈধ ক্ষমতা টিকিয়ে রাখার জন্য ভিন্নমত প্রকাশের স্বাধীনতার পক্ষের শক্তির আশা-ভরসার প্রতীক দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে আটকে রেখে ক্ষমতা চিরস্থায়ী করা যাবে না বলে মন্তব্য করেন রিজভী।