Logo

ট্রাম্প-সৌদি সম্পর্ক তদন্ত করবে কংগ্রেস

ট্রাম্প-সৌদি সম্পর্ক তদন্ত করবে কংগ্রেস

সৌদি আরবের সঙ্গে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অর্থনৈতিক সম্পর্ক খতিয়ে দেখবে ডেমোক্রেটিক দল। এ তদন্তে নেতৃত্ব দেবে মার্কিন কংগ্রেসের প্রতিনিধি পরিষদের গোয়েন্দা কমিটি। নতুন বছরে পার্লামেন্টের নিুকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদের নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে ডেমোক্রেটরা। এর কয়েকদিন পর রোববার ট্রাম্পের বিরুদ্ধে এ তদন্ত পরিচালনার ঘোষণা দিয়েছেন গোয়েন্দা কমিটির সদস্য এরিক সলওয়েল। এ ছাড়া রাশিয়ার সঙ্গে ট্রাম্পের সম্পর্কের বিষয়ে মানি লন্ডারিং তদন্তও শুরু করা হবে। খবর এপি ও ইয়াহু নিউজের।

প্রতিনিধি পরিষদের গোয়েন্দা কমিটি ও বিচারিক কমিটির সদস্য এরিক বলেন, ‘ওয়াশিংটনে নিউ ট্রাম্প হোটেলের শত শত কক্ষ ভাড়া করার ঘটনা শক্তভাবে তদন্ত করা হবে। ডোনাল্ড ট্রাম্প গত নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট পদে বিজয়ী হওয়ার পর সৌদি লবিস্টরা এসব হোটেল কক্ষ ভাড়া নেন।’ সাংবাদিকদের তিনি আরও বলেন, ট্যাক্স রিটার্ন ও ব্যাংক রেকর্ডের মাধ্যমে ট্রাম্পের সঙ্গে সৌদি সরকারের সম্পর্ক নিয়ে আপনারা জানতে পারবেন।’

সৌদি আরবের একটি জনসংযোগ কোম্পানিতে কাজ করেন এমন একজন মুখপাত্র মার্কিন ওয়াল স্ট্রিট জার্নালকে বলেন, সৌদি লবিস্টরা এমন একটি বিল পাসে বাধা দেয়ার চেষ্টা করেছেন যাতে ৯/১১ হামলার বিষয়ে বিদেশি সরকারগুলোকে দায়ী করে মার্কিন নাগরিকদের মামলা করার সুযোগ দেয়া হচ্ছিল। নির্বাচনী ক্যাম্পেইন পরিচালনার দায়িত্বে থাকা লোকজন সৌদি লবিস্টদের হোটেল কক্ষে থাকার সুযোগ করে দিয়েছিলেন। পরে তাদেরকে ক্যাপিটল হিলে এই বিলের বিরুদ্ধে লবিং করার জন্য পাঠানো হয়। সৌদি আরবের ওই জনসংযোগ প্রতিষ্ঠানটি হোটেল কক্ষের ভাড়া ও খাওয়া-দাওয়া বাবদ দুই লাখ ৭০ হাজার ডলার বিল পরিশোধ করে।

ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পর বিশ্বের সব দেশ বাদ দিয়ে প্রথম সফরে সৌদি আরব যান। ওই সফরে তাকে ব্যাপক সংবর্ধনা দেয়া হয়। যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে সৌদি আরব ১১ হাজার কোটি ডলারের অস্ত্র কেনার চুক্তি করে। এসব বিষয় নিয়েও কংগ্রেসম্যান এরিক সলওয়েল কথা বলেন।

এ ছাড়া ২ অক্টোরব সৌদি সাংবাদিক জামাল খাসোগি হত্যায় সৌদি সরকারের পাশে দাঁড়ান ট্রাম্প। নিজের এ অবস্থানের পক্ষে সাফাই গেয়ে বারবার সৌদির সঙ্গে স্বাক্ষরিত অস্ত্র চুক্তি ও ইরান প্রশ্নে ওয়াশিংটনের কৌশলগত অবস্থানের কথা বলছেন। ট্রাম্পের কাছে ‘খাসোগির চেয়ে ১১ হাজার কোটি ডলারের অস্ত্র চুক্তিই বেশি গুরুত্বপূর্ণ। ’ ট্রাম্প বলেছিলেন, ‘খাসোগি হত্যায় যুবরাজ জড়িত থাকলেও রিয়াদ-ওয়াশিংটন সম্পর্ক আগের মতোই থাকবে।’ টুইটবার্তায় প্রেসিডেন্টের এ ‘নির্লজ্জ’ অবস্থানের নিন্দা জানিয়ে ডেমোক্রেটিক কংগ্রেস সদস্য তুলসী গ্যাবার্ড ট্রাম্পকে ‘সৌদি আরবের পোষা মাদি কুকুর’ বলে অভিহিত করেন। ওই সময় ডেমোক্রেট হাউস প্রতিনিধি অ্যাডাম স্কিফ বলেছিলেন, সৌদি আরবের সঙ্গে ট্রাম্পের ব্যক্তিগত বাণিজ্য সম্পর্ক মার্কিন নীতিকে প্রভাবিত করছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হবে।