Logo

জাতিসংঘের সঙ্গে আজ ফখরুলের বৈঠক

জাতিসংঘের সঙ্গে আজ ফখরুলের বৈঠক

আগামী নির্বাচন ও দেশের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে নিউইয়র্কে জাতিসংঘের সদর দফতরে আজ বৈঠকে বসছে বিএনপির প্রতিনিধি দল। এই দলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।
স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ১০টায় (বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে ১১টা) সংস্থাটির রাজনীতিবিষয়ক সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মিরোস্লাভ জেনকার সঙ্গে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুলের এ বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে।
এতে বাংলাদেশের সার্বিক পরিস্থিতি, খালেদা জিয়ার মুক্তি ও আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে দলের পর্যবেক্ষণ তুলে ধরা হবে বলে জানা গেছে। এ সফরে জাতিসংঘের মহাসচিব এন্তোনি গুতেরাসের সঙ্গে বৈঠক হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।
এছাড়া যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্টের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বিএনপির প্রতিনিধি দলের বৈঠক হতে পারে। আজকের বৈঠকে যোগ দেয়ার উদ্দেশে জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেসের আমন্ত্রণে মঙ্গলবার মধ্যরাতে নিউইয়র্কের উদ্দেশে বাংলাদেশ ছেড়েছেন বিএনপি মহাসচিব ।

সূত্র জানায়, দেশের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা হলেও বৈঠকে আগামী সাধারণ নির্বাচন নিয়ে সৃষ্ট জটিলতাকেই বেশি প্রাধান্য দেবে বিএনপির প্রতিনিধি দল।
২০১৪ সালের নির্বাচনের আগে জাতিসংঘের তৎকালীন দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়াবিষয়ক সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল অস্কার ফার্নান্দেজ তারানকোর সঙ্গে বৈঠকে সরকার কয়েক মাসের মধ্যে নতুন নির্বাচন দেয়ার প্রতিশ্র“তি দিলেও তা রক্ষা করেনি। এ বিষয়টি তুলে ধরে আগামী নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু করতে জাতিসংঘের সহায়তা চাওয়া হতে পারে।
জাতীয় সংসদ নির্বাচনের কয়েক মাস আগে এ বৈঠক অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করছেন বিএনপি নেতারা। তাদের মতে, জাতিসংঘ ও কমনওয়েলথের তত্ত্বাবধানে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে নির্বাচন অনুষ্ঠানের নজির রয়েছে।
সরকার শেষ পর্যন্ত পদত্যাগ করে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের উদ্যোগ না নিলে এ বিষয়ে পদক্ষেপ নেয়ার জন্য জাতিসংঘের সহযোগিতা চাইতে পারে বিএনপি। সব দলের অংশগ্রহণে অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন নিশ্চিত করার লক্ষ্যে সরাসরি জাতিসংঘের হস্তক্ষেপও চাইতে পারেন তারা।
সূত্র জানায়, নিউইয়র্ক যাওয়ার আগে দলের সিনিয়র কয়েক নেতার সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে বৈঠকে কোন বিষয়গুলো তুলে ধরা হবে তা চূড়ান্ত করেন মির্জা ফখরুল।
বিএনপির এক নীতিনির্ধারক জানান, আগামী জাতীয় নির্বাচন, চেয়ারপারসনের মুক্তি, দেশের অব্যাহত গুম, হত্যা, মানবাধিকার লঙ্ঘনসহ সার্বিক অবস্থা তুলে ধরা হবে বৈঠকে। এজন্য একটি লিখিত বক্তব্য তৈরি করা হয়েছে। দেশের গণমাধ্যমে প্রকাশিত এ সংক্রান্ত বিভিন্ন প্রতিবেদন ও ছবির কাটিং সংগ্রহ করা হয়েছে। বিগত স্থানীয় সরকার নির্বাচনে ব্যাপক অনিয়ম ও কারচুপির চিত্রও তুলে ধরা হবে। অনিয়মের একটি প্রতিবেদনও তৈরি করা হয়েছে। সেখানে কীভাবে প্রকাশ্যে ব্যালটে সিল মারছেন সেই চিত্রসহ ভিডিও ক্লিপিংসও রয়েছে। সর্বশেষ নেতাকর্মীদের নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি ও গণগ্রেফতারের বিষয়টিও জাতিসংঘকে অবহিত করা হবে।